রবিবার, ২২ মে ২০২২, ১১:২৮ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ শিরোনামঃ
বিএনপি আমলের নির্বাচন এতটাই কলুষিত যে এ নিয়ে তাদের কথা বলার কোন অধিকার নেই : প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর টোল হার নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন দিনাজপুরে লিচুর বাম্পার ফলন : গাছে গাছে ঝুলছে পাকা লিচু কাঁদতে কাঁদতে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে প্রধানমন্ত্রী:, “ভাবলাম দেশের কাছে যাই, কখনও শুনি মা বেঁচে আছে, দুর্ভাগ্য! ষড়যন্ত্রে দলের লোকরাও ছিল” ১৭ মে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও গণতন্ত্রের অগ্নিবীণার প্রত্যাবর্তন দিবস : তথ্যমন্ত্রী সব বাধা পেরিয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে যেতে হবে : ওবায়দুল কাদের ২ লাখ ৪৬ হাজার কোটি টাকার নতুন এডিপি অনুমোদন শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপিত দেশরত্ন শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে “বাংলাদেশ ছাত্রলীগ” এর আনন্দ শোভাযাত্রা দেশের মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে দেশে ফিরেছিলাম : প্রধানমন্ত্রী মারিউপুল স্টিলওয়াকর্স থেকে ইউক্রেনীয় সেনাদের সরিয়ে নেয়া হয়েছে পল্লবী, সুশান্তের মতোই অবসাদে ভুগছে টলিপাড়া? মতামতে সুমন, অনুত্তমা, দিয়া পি কে হালদারের রুল শুনানি হাইকোর্টের কার্য তালিকায় শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ ‘ক্যাসিনো সম্রাটের’ জামিন বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে দুদকের আবেদন এবার আধা ঘণ্টার মধ্যেই বৃষ্টির পানি নিষ্কাষিত হবে : মেয়র তাপস টানা ২৬ দিন করোনায় মৃত্যু শূন্য দেশ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষের সাক্ষাৎ শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন বাংলাদেশের গণতন্ত্রের ইতিহাসে একটি মাইলফলক : রাষ্ট্রপতি ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে কৃষকদের কাছ থেকে ধান কেনা হচ্ছে: খাদ্যমন্ত্রী

বিপিএল: ওয়ালটনের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে চট্টগ্রামের সংগ্রহ ১৮৯ রান

  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
  • ৭২
| ছবি: সংগৃহীত

ওয়েস্ট ইন্ডিজের চাঁদউইক ওয়ালটনের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) এলিমিনেটর ম্যাচে খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে বড় সংগ্রহ পেয়েছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। 
টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৮৯ রান করেছে চট্টগ্রাম। ওয়ালটন ৪৪ বলে অপরাজিত ৮৯ রান করেন। পঞ্চম উইকেটে মেহেদি হাসান মিরাজের সাথে ৫৮ বলে ১১৫ রানের জুটি গড়েন ওয়ালটন। মিরাজ করেনে ৩০ বলে ৩৬রান। 
মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্বান্ত নেন খুলনার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।
ব্যাট হাতে নেমে ইনিংসের প্রথম বলেই মিড উইকেট দিয়ে চার মারেন চট্টগ্রামের ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটার কেনার লুইস। চতুর্থ বলে স্কয়ার লেগ দিয়ে হাকান ছক্কা। লুইসের এমন শুরুর মধ্যে ধাক্কা খায় চট্টগ্রাম। খুলনার পেসার খালেদ আহমেদের করা ওভারের শেষ বলে খালি হাতে  প্যাভিলিয়নে ফিরেন লুইসের সতীর্থ জাকির হাসান।
তিন নম্বরে নামা অধিনায়ক আফিফ হোসেনকে দ্রুত বিদায় দেন খুলনার বাঁ-হাতি পেসার রুয়েল মিয়া। পুল শট খেলতে গিয়ে ব্যাট-বলের টাইমিং মেলাতে না পেরে, আকাশে ক্যাচ তুলে দেন আফিফ। উইকেটের পেছনে সেটি তালুবন্দি করতে ভুল করেননি প্রতিপক্ষ নেতা মুশফিক। ৩ বলে ৩ রান করেন আফিফ।
১৬ রানে ২ উইকেট পতনের পর চট্টগ্রামের রানের চাকা ঘুড়ান লুইস ও তার স্বদেশি ওয়ালটন। তবে মারমুখী মেজাজে ছিলেন না তারা। তাই ৭ ওভার শেষে চট্টগ্রামের রান ছিলো ২ উইকেটে ৪১।
শ্রীলংকার থিসারা পেরেরার করা অষ্টম ওভারের প্রথম দুই বলে ১০ রান আদায় করে নেন লুইস। তবে পরের ওভারের প্রথম বলে থামতে হয় লুইসকে। বাঁ-হাতি স্পিনার নাবিল সামাদের বলে লেগ বিফোর আউট হন লুইস। ৩২ বলে ৪টি চার ও ২টি ছক্কায় ৩৯ রান করেন তিনি। তৃতীয় উইকেটে ওয়ালটন-লুইস  ৩৫ বলে ৩৮ রান যোগ করেন।
দলীয় ৫৪ রানে লুইসের বিদায়ের পর উইকেটে আসেন শামিম হোসেন। ১০ম ওভারের প্রথম দুই বলে ২টি চার মারেন শামিম। কিন্তু চতুর্থ বলে লেগ বিফোর হন তিনি। এডিআরএস নিয়েও নিজেকে বাঁচাতে পারেননি ৭ বলে ১০ রান করা শামিম।
১০ ওভার শেষে চট্টগ্রামের স্কোর ৪ উইকেটে ৬৬ রান। এ অবস্থায় রানের গতি বাড়াতে মনোযোগি হন ওয়ালটন ও ক্রিজে নতুন ব্যাটার মেহেদি হাসান মিরাজ। মাহেদির করা ১২তম ওভারে ১৮ রান তুলেন তারা। খালেদের করা ১৩তম ওভারে ১৪ রান তুলেন ওয়ালটন-মিরাজ।
রুয়েলের করা ১৫তম ওভারে ২২ রান তুলেন ওয়ালটন-মিরাজ।এই ওভারে ২টি করে চার-ছক্কায় টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের ১৪তম হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন ওয়ালটন। ২৯তম বলে হাফ-সেঞ্চুরিতে পা দেন তিনি। আর এই ওভারেই ২৮ বলে হাফ-সেঞ্চুরির জুটিও গড়েন তারা।
১৬তম ওভার থেকে ১৪ রান তুলেন ওয়ালটন-মিরাজ। কিন্তু ১৭তম পেরেরা ৫ রান দিলেও, ১৮তম ওভারে ১০ রান দেন মাহেদি। এতে দেড়শ রান স্পর্শ করে চট্টগ্রাম।
নিজের দ্বিতীয় ওভারে পেরেরা ৫ রান দিলেও, তৃতীয় ও ইনিংসের ১৯তম ওভারে ২০ রান দেন পেরেরা। প্রথম চার বলে ৩টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন ওয়ালটন। এতে ৪৩ বলে ৮৮ রানে পৌঁছে সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগান ওয়ালটন।
শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে ২টি চার ও ১টি ছক্কায় ৩০ বলে ৩৬ রান করা মিরাজকে বোল্ড করেন খালেদ। পঞ্চম উইকেটে মাত্র ৫৮ বলে এবারের  টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ  ১১৫ রানের জুটি গড়েন ওয়ালটন ও মিরাজ। আর এই জুটিতে ২৮ বলে ৭৮ রান তুলেন ওয়ালটন।
শেষ ওভারের পঞ্চম বলে ছক্কা মারেন ইংল্যান্ডের বেনি হাওয়েল। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৮৯ রানের সংগ্রহ পায় চট্টগ্রাম। শেষ ওভারে মাত্র ১ বল খেলেছেন ওয়ালটন। তাই ৮৯ রানে অপরাজিত থাকতে হয় তাকে। তার ৪৪ বলের ইনিংসে ৭টি করে চার-ছক্কা ছিলো। ৩ বলে ৮ রান করে অপরাজিত ছিলেন হাওয়েল।
খুলনার খালেদ ২টি, নাবিল-রুয়েল ও মাহেদি ১টি করে উইকেট নেন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স : ১৮৯/৫, ২০ ওভার (ওয়ালটন ৮৯*, লুইস ৩৯, খালেদ ২/৪০)।

Source/BSS

শেয়ার করুন

আরও খবর

মুজিববর্ষ সম্পর্কে জানতে নিচে ক্লিক করুন