ঢাকা, বাংলাদেশ সময়ঃ ৩:৫০ পূর্বাহ্ণ শুক্রবার, ৭ মে, ২০২১
জাতীয়
অনলাইন ডেস্ক
অনলাইন ডেস্ক
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
ছবি: সংগৃহীত

ভারতের ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন সরকার পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে চাকরি করতে গেলে ধূমপান ছাড়তে হবে। তবেই টিকে থাকবে চাকরি। এখানেই শেষ নয়।

যেসব কর্মী ধূমপান করেন, তাদের এফিডেভিট দাখিল করে জানাতে হবে যে তারা ধূমপান ছেড়ে দিচ্ছেন। শুধু ধূমপানই নয়।

কোনো ধরনের তামাকজাত দ্রব্যই তারা সেবন করতে পারবেন না বলে জানানো হয়েছে। হেমন্ত সোরেন সরকার জানিয়েছে, প্রতিটি অফিস তামাক বর্জিত এলাকার তালিকায় পড়ছে।

তাই কোনোভাবেই অফিসের মধ্যে বা অফিস চত্বরে ধূমপান করা যাবে না বা অন্য কোনো তামাকজাত দ্রব্য সেবন করা যাবে না। রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের হলফনামা দাখিল করতে বলা হয়েছে এই বিষয়ে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, সম্প্রতি রাজ্য মন্ত্রিসভায় এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

পরে স্টেট টোব্যাকো কন্ট্রোল কোঅর্ডিনেশন কমিটির বৈঠকের পর রাজ্যের মুখ্য সচিব সুখদেব সিং প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের জানান, সেক্রেটারিয়েট, পুলিশের সদর দফতর, জেলা ও ব্লকগুলির সবক’টি সরকারি অফিসকে তামাকজাত দ্রব্যহীন এলাকা ঘোষণা করতে হবে।

সেই নির্দেশমতো কাজ শুরু করে প্রশাসন। প্রতিটি সরকারি অফিসে টোব্যাকো ফ্রি জোনের বোর্ড লাগিয়ে দেয়া হয়।

ঝাড়খণ্ড সরকারের নির্দেশ, যেসব চাকরিপ্রার্থী সরকারি চাকরির পরীক্ষায় বসছেন বা সরকারি চাকরি সদ্য পেয়েছেন, এই নিয়ম তাদের জন্যও বলবৎ হবে। ২০২১ সালের ১ এপ্রিল থেকে এই নিয়ম জারি করা হবে।

 ইউনিভার্স ট্রিবিউন