ঢাকা, বাংলাদেশ সময়ঃ ৫:১৪ অপরাহ্ণ শনিবার, ৮ মে, ২০২১
আর্জেন্টিনা
অনলাইন ডেস্ক
অনলাইন ডেস্ক
Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
ছবি: সংগৃহীত

আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ এনে দেয়া ফুটবল কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার আকস্মিক মৃত্যুতে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক লিওপোল্ডো লুককে দায়ী করেছে পরিবার।

ম্যারাডোনার পরিবার ও নিকটাত্মীয়দের অভিযোগ, মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর ম্যারাডোনাকে যতটা সেবা-চিকিৎসা দেয়া উচিত ছিল, লিওপোল্ডো ততটা দেননি। নিয়মিত খোঁজ রাখেননি তিনি। ম্যারাডোনার কার্ডিয়াক অ্যারেস্টের পরও তাকে দেখতে যাননি লিওপোল্ডো। তিনি ক্লিনিকে ফোন করে অ্যাম্বুলেন্স ডেকে দায় সেরেছেন মাত্র।

ম্যারাডোনার পরিবারের এমন অভিযোগের লিওপোল্ডোর ক্লিনিকে এবং বাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ। তার সম্পত্তির অনুসন্ধানে নেমেছেন ম্যারাডোনার মৃত্যুর তদন্তকারী কর্মকর্তারা।

তবে এমন সব অভিযোগ অস্বীকার করে চিকিৎসক লিওপোল্ডো নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করছেন।

রোববার রাতে একটি স্থানীয় টেলিভিশন শোতে অংশ নিয়ে লিওপোল্ডো কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ম্যারাডোনার চিকিৎসকই ছিলাম না শুধু; তিনি আমার পরম বন্ধু ছিলেন। তার জন্য যা করণীয় ছিল, তার চেয়েও বেশি করেছি। নিজেকে নির্দোষ প্রমাণে আদালতে জবানবন্দি দিতেও প্রস্তুত তিনি।

ম্যারাডোনার পারিবারিক চিকিৎসক লিওপোল্ডো লুক। গত কয়েক বছর ধরে ম্যারাডোনার চিকিৎসার দেখভালের দায়িত্ব তার কাঁধেই ছিল।  

কিছু দিন আগে ম্যারাডোনার মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বেঁধে গেলে লিওপোল্ডোই তার চিকিৎসা করে সুস্থ করে তুলেছিলেন।  

তার তত্ত্বাবধানে একটি হাসপাতালে আট দিন অবস্থান করে চিকিৎসা দেয়া হয় ম্যারাডোনাকে। 

সে সময় লিওপোল্ডো ম্যারাডোনার সঙ্গে একটি সেলফি তুলে ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে জানিয়েছিলেন, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরছেন দিয়েগো। 

তবে ম্যারাডোনার পরিবারের একাংশের অভিযোগ, মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর বাড়িতে ফিরলে ফুটবল স্টারের পরিষেবায় গাফিলতি দেখিয়েছেন লিওপোল্ডো।  বাড়িতে আসার পর কোনো একটি বিষয়ে ম্যারাডোনার সঙ্গে ঝগড়ায়ও লিপ্ত হয়েছিলেন তিনি। তার এই অবহেলার কারণেই হার্টঅ্যাটাকে মৃত্যু ঘটেছে ইতিহাসসেরা ফুটবলারের।

তথ্যসূত্র: ডয়েচে ভেলে

Adddd_Logo.png
 ইউনিভার্স ট্রিবিউন